Web Tutorials

ওয়েব হোস্টিং কি ও ডোমেইন কি বিস্তারিত ?

0
হোস্টিং ও ডোমেইন কি

আমরা এই ইন্টারনেট জগতে প্রতিনিয়ত নিজেদের কাজ কর্ম গুলো ওয়েব এর মাধ্যমে সম্পন্ন করে থাকি কিন্তু আমরা ডোমেইন ও হোস্টিং সম্পর্কে অনেকেই ভালো ভাবে জানি তাদের জন্য এই আর্টিকেল এবং যারা ওয়েব সাইট বানাতে চান তাদের জন্য এটি জানা গুরুত্বপূর্ণ  । চলুন জানি ওয়েব হোস্টিং কি ও ডোমেইন কি  ?

ডোমেইন কিঃ ডোমেইন ইংরেজি শব্দ যার বাংলা অর্থ স্থান। আপনি যখন একটি সাইট বানানোর ঔচ্ছা করবেন তখখন অবশ্যই আপনারর একটি ডোমেইন নিতে বা অনলাইনের একটি স্থান কিনে নিতে। এক কথাই কোন ওয়েবসাইট এর নামই হলো ডোমেইন আর এই ডোমেইন টা সবার থেকে আলাদা হয়।প্রত্যেক মানুষের যেমন নাম আছে ঠিক তেমনি প্রত্যেক ডোমেইন এর নাম আছে কিন্তু এদের মধ্যে পার্থক্য আছে। মানুষের একই নাম একাধিক মানুষের হয় কিন্তু একটি ডোমেইন নাম একই না এটা সবার থেকে আলাদা।

ডোমেইন এর গঠনঃ
আমরা যখন একটি ওয়েব সাইটের নামেরর দিকে খেয়াল করে থাকে তাহলে এই রকম দেখতে পাই। https://www.nanoblog.net বা, https://www.nanoblog.net এটি একটি ডোমেইন নেম।
এখানে, “http://” অংশটুকু হচ্ছে প্রোটোকল, “www.” হচ্ছে Hostname, “nanoblog” হচ্ছে প্রতিষ্ঠানের নাম/ডোমেইন নেম/2ndLevel Domain এবং “.com” অংশটুকু হচ্ছে ডোমেইন এক্সটেনশন ।অর্থ্যাৎ এর গঠন প্রোটোকল//:ওয়েব.ডোমেইন নেম.ডোমেইন এক্সটেনশন ।

ডোমেইন সম্পর্কে আরো কিছু তথ্যঃ

একটি ওয়েবসাইট এর সকল ফাইল একটি সার্ভার (কম্পিউটার) এ থাকে। প্রত্যেক সার্ভার এর একটি নির্দিষ্ট IP Address (Internet Protocol Address) থাকে। যার মাধ্যমে ঐ সার্ভারকে ইন্টারনেট এ খুঁজে পাওয়া যায়। যেমন একটি ওয়েবসাইট এর সার্ভার এর IP Address হতে পারেঃ
170.198.168.212
কিন্তু এভাবে তো আর সব ওয়েবসাইট এর IP Address মনে রাখা সম্ভব না। এই সমস্যা দূর করার জন্য ডোমেইন সিস্টেম আবিষ্কার করা হয়। ।একেক ডোমেইন এর জন্য একেক ধরনের আইপি এড্রসে থাকে ফলে যখন কেউ ডোমেইন নাম লিখে তখন ঐ ডোমেইনের জন্য বরাদ্দ করা আইপি এড্রেসে ঢুকে সাইট টা আমাদের সামনে লোড করে।

ডোমেইন নামকরণ শর্তঃ

১. ডোমেইন নামে এ সর্বনিন্ম ৩ টি অক্ষর থাকতে হবে এবং সর্বোচ্চ ৬৩টি অক্ষরের হতে পারবে।
২. নামের ভেতরে শুধু ইংরেজি অক্ষর , 0-9 এভং “-” (Hyphen) ব্যবহার করা যাবে।

ডোমেইনের বিভিন্ন ধরণঃ
Domain আবার কয়েক ধরনের হয়ে থাকে। TLD = Top Level Domain । যেমনঃ .com, .org,
.net, .info, .pw, .me ইত্যাদি। এগুলো হচ্ছে সর্বোচ্চ লেভেল এর Domain ।

GTLD = Generic Top Level Domain । Top Level Domain গুলোর মধ্যে যেগুলো কোন দেশের সাথে সংশ্লিষ্ট না তাদেরকে GTLD বলে। .com, .org, .net, .info ইত্যাদি কিছু সংখ্যক Generic Top Level Domain । আর .in, .pk ইত্যাদি Generic Top Level Domain নয়।

SLD = Sub Level Domain:
কোন ডোমেইন নামের আগে কিছু থাকলে তাদের সাব লেভেল ডোমেইন বা সাব ডোমেইন বলে।
উদাহরনঃ webdesign.nanoblog.net
একটি ডোমেইন এক বা একাধিক সাব ডোমেইন থাকতে পারে।

ccTLD = Country Code Top Level Domain । বিভিন্ন দেশের নিজস্ব যেই ডোমেইনগুলো থাকে তারা হচ্ছে Country Code Top Level Domain । যেমন .bd(Bangladesh), .pk
(Pakistan), .us (America), .uk (United Kingdom), .in (India) ইত্যাদি।

বিশ্বের প্রথম Domain হচ্ছে symbolics.com ।এটা Massachusetts computer company
রেজিস্টার করেছিল Symbolics দ্বারা মার্চ ১৫, ১৯৮৫ সালে।

টপলেভেলে ডোমেইন গুলো অর্থ দিয়ে কিনতে হয়।এছাড়া কিছু ফ্রি ডোমেইন পাওয়া যেগুলো
dot.tk dot.ml dot.gq dot.cf আর কিছ সাইট ব্লিডার আছে যেখানে আপনি সাবডোমেইন পাবেন ফ্রিতে যেমনঃ blogger.com।আপনি ফ্রি ডোমেইন নিতে চাইলে www.freenom.com নিতে পারেন।একটি টপ লেভেল ডোমেইনের দাম ১বছরের জন্য 700-1000 টাকা পর্যন্ত হতে পারে।

হোস্টং কিঃ আপনার ওয়েবসাইট এর নাম রেজিস্ট্রেশন করে রাখলেই হবে না আপনার ওয়েব সাইটের কনটেন্ট বা ওয়েব ডকুমেন্ট গুলো রাখার জায়গার দরকার।
যেমনঃ HTML,Image,Video,Audio,php ইত্যাদি ধরনেড় ফাইল রাখার জন্য জায়গা দরকার সেই জায়গাটাই হলো হোস্টিং। অর্থ্যাৎ আপনার সাইটের ডকুমেন্ট রাখার স্থান হলো হোস্টিং এবং এই হোস্টিং এর সাথে কানেক্ট থাকে ব্যান্ডউইথ। হোস্টিং জায়গা যতটকু হবে ততটুকু আপনাট ডকুমেন্ট রাখতে পারবেন। ওয়েব হোস্টিং কখনও কখনও সার্ভার বা ওয়েব সার্ভার ও বলা হয়ো থাকে।

ফ্রি হোস্টিং সাইট লিংকঃ

www.5gbfree.com Ihostfull.com

ব্যান্ডউইথঃ ব্যান্ডউইথ হলো ঐ হোস্টিং বা সার্ভারো মাসে কতটুক পরিমাণ ডাটা আদান-প্রদান বা বের হবে সেই প্রক্রিয়া।

আরো পড়ুনঃ হ্যাকিং প্রতিরোধে তৈরি করুন স্মার্ট পাসওয়ার্ড নিজেকে রাখুন সুরিক্ষত ।

monsterid
নিজের সম্পর্কে তেমন কিছু বলার নাই । আমি প্রতিনিয়ত নতুন কিছু শিখার বা জানার চেষ্টা করি এবং নিজের জানা ও শিখা বিষয় গুলো আপনাদের সাথে শেয়ার করে থাকি এই সাইট টির মাধ্যমে । "Learn And Share Your Knowledge"

ক্রিপ্টো কারেন্সি বা বিটকয়েন কি?  কিভাবে উপার্জন করা যায়  বিস্তারিত জেনে নিন।

Previous article

যে কারণে এই ব্যক্তি কে অনুসরণ করবেন ! ঝংকার মাহবুব রিভিউ ।

Next article

You may also like

Comments

Leave a reply