Tech Knowledge

বর্তমানে যেসব কারণে ইমো (imo) ব্যবহার করা উচিত নয় ! ২০১৯

0
ইমো ব্যবহার

ন্যানোব্লগে আপনাদের সবাইকে আবারো স্বাগতম , কয়েকদিন পর আবারো হাজির হইলাম আরেকটি আর্টিকেল নিয়ে আজকে আলোচনা করব কেন বর্তমানে আমাদের ইমো (imo) ব্যবহার করা উচিত নয় ! ( ব্যক্তিগত মতামত )

ইমো (imo) একটি জনপ্রিয় একটি ভিডিও কল,চ্যাটিং অ্যাপ্লিকেশন যেটার মাধ্যমে অনেকেই ভিডিও কল,অডিও কল , চ্যাটিং করে থাকেন । ইমো ব্যবহার করা সহজ হওয়াতে বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষ এই অ্যাপ টি কে ব্যবহার করা শুরু করে এবং দিন দিন অ্যাপটির জনপ্রিয় তে বেড়েই চলে এবং হয়ে যায় এক সেরা ভিডিও কলিং ও চ্যাটিং প্ল্যাটফর্ম । ইমো (imo) অ্যাপ টি ব্যবহার করা সহজ হওয়ার যারা অ্যান্ড্রয়েড ফোন সম্পর্কে তেমন ধারণা ও রাখে না তারাও সহজেই অ্যাপ টি ব্যবহার করতে পারে , আবার অনেক প্রবাসী মানুষ গুলো এটি ব্যবহার করে থাকে তাদের আত্মীয়-স্বজন দের সাথে যোগাযোগ রাখতে , অনেক মা তার সন্তান কে দেখার জন্য ইমো ব্যবহার করে থাকে ।

ইমো ব্যবহার যেমন আমাদের যোগাযোগ ব্যবস্থা কে যতটা সহজ করে তুলেছি ঠিক ততটা জঘন্য ও অসুবিধারও করে তুলছে  । ইমো তার জনপ্রিয়তার কারণে দিন দিন আপডেট দিয়ে নতুন নতুন ফিচার যুক্ত করেছে এবং সেই নতুন ফিচার যুক্ত করতে গিয়ে তারা ইদানিং এই ভালো একটি প্ল্যাটফর্ম কে করে তুলেছে নোংরামিং কারখানা এতে অনেক ধরনের প্রভাব পড়তে পারে ইমো সৎ ব্যবহারকারীর উপর । কারণ ইমো ২০১৯ এ যেসব আপডেট এনেছে এগুলোর অনেকটাই একজন আর্দশ ব্যবহারকারীর কাছে খারাপ লাগার বিষয় ।

ইমো তাদের ইউজার বাড়ানোর এবং ইউজাদের সুবিধা দিতে গিয়ে ভুলে গেছে তাদের অ্যাপ্লিকেশন টি শুধু প্রাপ্ত বয়স্ক লোক নয় সকল বয়সের ও সকল শ্রেণির লোকই ব্যবহার করে । এখনার একটি ছোট শিশু ও তার বাবা বা পরিবারের অন্যকারো সাথে কথা বলার জন্য বাড়ির ফোন থেকে ইমো তে কথা বলে আর এখানেই যদি তার সামনে অশ্লীন সব দৃশ্য আসে তখন সেটা তার উপর কি প্রভাব ফেলবে ? আরো সব কারণ রয়েছে যারা কারণে ইমো দিন দিন একটি অশ্লীন প্ল্যাটফর্ম পরিণত হচ্ছে যদিও আগে থেকে দেহ ব্যবসা কম হতো না । ইমো বিভিন্ন ধরনের সমস্যা নিয়ে নিচে আলোচনা করা হলো এবং এইসব মতামত কথা সব আমার ব্যক্তিগত এবং যুক্তিগত যদি আপনার ইচ্ছা হয় মানবেন আর না হলে মানবেন না ।

যেকারণে ২০১৯ এ ইমো ব্যবহার করা উচিত নয় !

১। ইমো নাম্বার/অ্যাকাউন্ট (imo number/account)

আমরা যারা ইমো ব্যবহার করে থাকি দেখব আমাদের অ্যাকাউন্ট অনেক সময় অচেনা বিভিন্ন লোকজন অ্যাড হয়ে যায় তখন দু পক্ষের একটা বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয় ব্যক্তি টা কে ! কি এমন হয়েছে তো ? আপনি একজন ইমো ব্যবহারকারী হলে এটি অবশ্যই আপনার সাথেও হওয়ার কথা । এক জনের নাম্বার বা অ্যাকাউন্ট যাই বলেন না কেন এটি আরেক জনের কাছে চলে যায় এটি সাধারণত ইমোর একটি সিস্টেম যদি আপনার ইমো তে যুক্ত থাকা কোন লোকের কোন বন্ধুর বা কারো অ্যাকাউন্ট থাকলে সেটিও অটো চলে আসবে আপনার ইমো তে বা আপনার ঐ বন্ধুর বন্ধুর অ্যাকাউন্টে । হ্যাঁ এটি ঘটে থাকে আপনি না চাওয়া সর্ত্তেও আপনার ইমো অ্যাকাউন্ট অন্য লোকের কাছে চলে যায় ? আপনি যদি চালাক চতুর হয়ে থাকেন তাহলে ডিলিট করে দিবেন কিন্তু ঐ যে বললাম সকল শ্রেণির লোকেরা ইমু ব্যবহার করে তাদের কি হবে ওরা তো শুধু কল দিতে পারে আর ধরতে পারে । এভাবে আপনার বউ,বাচ্চা,আত্মীয়-স্বজন সকলের নাম্বার যদি কোন অসাধু লোকের হাতে চলে যায় তখন কি হবে ? নিজের ভেবে দেখুন ।

২।ইমো এডাল্ট নোটিফিকেশন ( imo adult notification )

ইমো ২০১৯ এ নতুন কিছু সার্ভিস যুক্ত হওয়ার পর দেখা যাচ্ছে ইমো থেকে সারাদিন কিছু না কিছু নোটিফিকেশন দিয়ে থাকে যেগুলো এডাল্ট হয়ে থাকে বেশি ভাগই যেমনঃ আমাকে ভালোবাসবে , আমার সাথে সেক্স করতে চাও , আসো লাইভ করি আর কত কি ? । এখন আপনি ভেবে দেখুন এসব যদি আপনার কোন অপ্রাপ্ত বয়স্ক ছেলে মেয়ের সামনে বা অন্য কারো সামনে পড়ে থাকে তাহলে ওরা এ থেকে কি শিখবে ? এছাড়াও আপনার মা বা আরো অন্যকেউ ব্যবহার করার সময় এজিনিস গুলো সামনে পড়তে পারে তা একটি অসস্তির হতে পারে ।

৩।ইমো লাইভ ( imo live )

ইমো তে আরো একটি নতুন অপশন যুক্ত হয়েছে ইমো লাইভ ( imo live ) লাইভ নামে যেটার কারণে হচ্ছে খোলামেলা যতসব জঘন্য জিনিস । অনালাইনে এমনিতেই চলে অনেক ধরনের দেহ ব্যবসা আর এসব কাজ সংগঠিত হয় ইমো দ্বারা কিন্তু সেটা হচ্ছি আগে গোপনে কিন্তু নতুন আপডেট তা হচ্ছে এখন প্রকাশ্যে ইমো তে একটি ডাইমন্ড সিস্টেম করা হয়েছে যেটা জোগার করার মাধ্যমে মোবাইল রিচার্জ নিতে পারবে ইমো ব্যবহারকারীরা । ইমো ডাইমন্ড সিস্টেম সুবিধা গ্রহণ করছে অনেকেই সৎ ভাবে আবার অনেকেই অসৎ ভাবে এখন দেখা যাচ্ছে যারা অনলাইন ইমো তে টাকার বিনিময়ে ভিডিও কলে সেক্স করত তারা ডাইরেক্ট ইমোতে এসে নিজেরদের খোলামেলা করে কামিয়ে নিচ্ছে অন্যদের থেকে ডাইমন্ড আর সেটা দিয়ে তারা কামাচ্ছে টাকা । শুধু যে মেয়েরা এসব করছে তা না বিভিন্ন প্রবাসী ও দেশবাসী ছেলেরা ও এসব করছে আর তাদের অ্যাকাউন্টের রয়েছে আবার সেক্সচুয়াল নাম আর ঐ সব কনটেন্ট যদি আপনাদের পরিবারের কারো সামনে পড়ে তখন একটা কেমন অবস্থা হবে যারা আগে ইমো পরিবারের সাথে যোগাযোগ করার জন্য সৎ ভাবে ব্যবহার করত তাদের জন্য কেমন ক্ষতিকর ? কি গ্যারান্টি আছে আপনার ছেলে মেয়ে এসব বাজে কনটেন্ট এর চক্করে পড়বে না । তাই ইমো ব্যবহার আপনি আপনার বিবেক কে কাজে লাগান আপনার ব্যবহার করা উচিত কি না ?

৪। ইমো ভিডিও ( imo video )

ইমো ২০১৯ এর আরেকটি আপডেট রয়েছে টিকটকের মতো ভিডিও দেখার সুবিধা আর এইসব ভিডিও কি ধরনের হয়ে থাকে আপনি ভালো করেই জানেন । এই টিকটকের কারণে অনেক অশ্লীনলতার চক্করে এর মাঝে ইউটিউব ফেসবুকে বন্যা বয়ে গিয়েছিল হয়তো ইমো তাদের থেকে অনুপ্রেরণা পেয়ে টিকটকের মতো আরেকটি আলাদা সাইটের ভিডিও গুলো ইমোতে এনে আপনাদের আমাদের দেখাচ্ছে যেখানে বিভিন্ন ধরনের কনটেন্ট থাকে যা থেকে দূরে থাকাই আমাদের ভালো । বিশেষ করে ইন্ডিয়ান কনটেন্ট গুলো বেশি খোলামেলা দেখা যায় আর এসব যদি আপনার পরিবারের এমন জনের কাছে দৃশ্যমান হয় যা তার দেখার উপযুক্ত না বা আপনার ও না তাহলে কেমন হয় ? এত নোংরামি দিয়ে ভরে গেলে কিভাবে চলা সম্ভব ।

৫।সর্বশেষে ( Finishing ) 

আমরা যারা আসলেই ইমো নিজেরদের আত্মীয়-স্বজনদের সাথে যুক্ত থাকার কারনে ব্যবহার করে থাকে এবং মনে করে এমন একটি সহজ অ্যাপ টি থাকলে যারা তেমন কিছু জ্ঞান রাখে না ডিভাইস গুলো চালানোর ও ইন্টারনেট চালানোর জ্ঞান তেমন রাখে তাদের কাছে অনেক সুবিধা জনক তাদের কাছে উপোরক্ত বিষয় গুলো আসলেই খারাপ লাগার । আমি উপরে যা কিছু বলেছি তা আমার একান্ত ব্যক্তিগত মতামত আপনারা এর সাথে না ও পোষণ করতে পারেন এবং হ্যাঁ ও বলতে পারেন আর অবশ্যই হ্যাঁ বলার কথা যদি একজন আর্দশ ব্যবহারকারী হয়ে থাকেন । এখানে আমি ইমোর বড়াই করতে আসে নাই কিন্তু কষ্ট পেলাম ইমোর এমন আপডেট দেখে কারণ এটি অনেকের কাছে তার ছেলে,স্বামী,মা-বোন দূর থেকে যোগাযোগ করার একটি সহজ মাধ্যম কিন্তু সেটা যদি ওপেন নোংরামির জায়গা হয়ে যায় তাহলে এটি দুঃখ জনক ।

তাই আমি মনে করি বর্তমানে সব দিক বিবেচনা করে অন্য কোন ভালো একটা মাধ্যমে শিফট হওয়া দরকার সেটা হতে পারে Whatsapp,Skype,Duo ইত্যাদি যেখানে আপনার অ্যাকাউন্ট অন্যদের কাছে চলে যাওয়ার ভয় নাই যতক্ষণ আপনার নাম্বার তাদের কাছে থাকছে এবং এদের কল কোয়ালিটি ও খুব ভালো এবং ফ্রি তে যথেষ্ট কিছু করতে পারবেন । 

ধন্যবাদ।

নিচের ফেসবুক কমেন্ট বক্স ইমো সম্পর্কে আপনার মতামত জানাতে ভুলবেন না । 

আরো পড়ুনঃ

প্রোগ্রামিং কি ও কেন ? এটি খায় না পিন্দে না মাথায় দেয়।

ফ্লেক্সিপ্ল্যান (Flexiplan GP) অ্যাপ ছাড়াই বিভিন্ন প্যাক কিনার উপায় !

পিসির জন্য ফ্রি তে ডাউনলোড করে নিন একটি প্রিমিয়াম ভিপিএন । Betternet Premium VPN

হ্যাকিং প্রতিরোধে কিভাবে জিমেইল অ্যাকাউন্টে টু স্টেপ ভেরিফিকেশন সেটআপ করবেন।

Facebook Comments

MD Biplop Hossain
নিজের সম্পর্কে তেমন কিছু বলার নাই । আমি প্রতিনিয়ত নতুন কিছু শিখার বা জানার চেষ্টা করি এবং নিজের জানা ও শিখা বিষয় গুলো আপনাদের সাথে শেয়ার করে থাকি এই সাইট টির মাধ্যমে । "Learn And Share Your Knowledge"

প্রোগ্রামিং কি ও কেন ? এটি খায় না পিন্দে না মাথায় দেয়।

Previous article

Udemy কি ? কিভাবে Udemy থেকে ফ্রি তে স্কিল ডেভেলম্পমেন্টের বিভিন্ন কোর্স ডাউনলোড করবেন ।

Next article

You may also like

Comments

Leave a reply