NanoBlog
স্মার্টফোন ভালো রাখার উপায়

আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোন কে ভালো রাখার জন্য ১০ টি করণীয় টিপস ।

আসসালামু আলাইকুম,

আমাদের দৈনন্দিন জীবনের সাথী হলো আমাদের হাতের অ্যন্ড্রয়েড ফোন যা আমরা বিভিন্ন ভাবে বিভিন্ন প্রকারে মানুষ ব্যবহার করে থাকি । আমাদের এই অ্যান্ড্রয়েড ফোন বা মোবাইল টি যেমন প্রিয় ঠিক তেমনি এই নিয়ে আমরা চিন্তিত যে কিভাবে আমাদের এই স্বাদের মোবাইল টি ভালো রাখা যায় যেন বড় ক্ষতি না হয়  । তাই আমি আজ আপনাদের আন্ড্রয়েড ফোন বা মোবাইল ভালো রাখার ১০ করণীয় টিপস দিব যার মাধ্যমে আপনার ফোনকে রাখতে পারেন আরো সুরক্ষরিত ।

অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ভালো রাখার ১০ করণী টিপসঃ

১। মোবাইল ফোন চার্জে দিয়ে ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন এর ফলে মোবাইলের ব্যাটারি তাড়াতাড়ি নষ্ট হয় বাস্তব উদাহরণ আমি  । আমার অভ্যাস ছিল চার্জে দিয়ে মোবাইল ব্যবহার করার যার ফলে আমার কয়েকটা ব্যাটারি কিনার প্রয়োজন পরে ।

২ । ফোনের ইন্সটল থাকা অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ্স আনইন্সটল করে রাখুন এতে ফোন আরো দ্রুত কাজ করবে । অনেকেই আমরা প্রয়োজনের বেশি অ্যাপ ইন্সটল করে ফোন অতিরিক্ত চাপ দিয়ে থাকি ফোনে বেশি অ্যাপ্স থাকলে বেশি চার্জ যাবে বেশি শক্তি খরচ হবে তাই শুধু প্রয়োজনীয় অ্যাপ্স ইন্সটল করে রাখুন ।

৩। আপনার ফোনের র‍্যামের উপর ভিত্তি করে গেমস ইন্সটল দিন এবং খেলুন কখন ৫১২  বা ১ জিবি র‍্যাম এর চেয়ে বেশি সাইজের গেম খেলতে যাবেন তাহলে ফোন স্লো বা ধীর গতির হয়ে যাবে ।

৪ । আপনার মোবাইলের ফোন মেমরির জায়গা যদি কম তাহলে ফোন মেমরি তে কোন ফাইল না রাখার পরামর্শ দেওয়া হলো আর যদিও  ফোন মেমরি জায়গা বেশি ফোন মেমরি ভর্তি করে রাখবেন না সব সময় ফোন মেমরি মিনিমাম ১ জিবি ফাঁকা রাখার চেষ্টা করুন । ফোন মেমরি ফুল করে রাখলে দেখা মোবাইল স্লো কাজ করে ।

৫ ।  কোন ভরসা মান যোগ্য সাইট ছাড়া কোন জায়গা থেকে অ্যাপ ইন্সটল করবেন না ঐ সব অ্যাপ্সে ভাইরাস থাকতে পারে আবার না পারে ।

৬ । শুধু মাত্র প্রয়োজনীয় অ্যাপলিকেশন সমূহ ইনস্টল করুন। ইন্টারনাল স্পেস যতটুকু ফাঁকা রাখা সম্ভব ততই ভালো। মাঝে মাঝে ক্যাশ পরিষ্কার করুন, তবে সাবধান! এই প্রসেস করতে গিয়ে অনেকেই ভুলে প্রয়োজনীয় তথ্য হারিয়ে ফেলে।

৭ । সবসময় হালকা লঞ্চার ব্যবহার করবেন। হালকা বলতে আমি সিম্পল বোঝাতে চাইছি, যেমন অ্যাপেক্স বা নোভা। ব্যাটারি সেভার,র্যামক্লিনার, ক্যাশ ক্লিনার -ইত্যাদি টাইপের অ্যাপ এবং উইজেট আন-ইন্সটল করুন।

৮ । মাঝে মাঝে প্রয়োজনীয় ডাটা ব্যাক-আপ রেখে ফ্যাক্টরি রিসেট করুন।

৯ । ব্যবহার করতে পারেন ফ্লিপ-কভার বা বিভিন্ন ধরনের কভার। এতে করে আপনার ডিসপ্লে তো বটেই বরং ফোনটিরও একটা
আলাদা সুরক্ষা লেয়ার সৃষ্টি হবে। হঠাৎ হাত থেকে ডিভাইসটি পরে গেলে শক থেকে কিছুটা হলেও রক্ষা করবে।

১০ ।  এখনতো বলা নেই কওয়া নেই হুটহাট বৃষ্টি নামে! বৃষ্টি তো আপনি থামাতে পারবেন না তাইনা? এজন্যে পলিথিন রাখতে পারেন
সাথে, যেন হঠাৎ বৃষ্টিতে যদি আপনি বাইরে থাকেন তখন ডিভাইসটি রেখে দিতে পারেন
তার মধ্যে, এক্ষেত্রে জিপ ব্যাগ ব্যবহার করতে পারেন। খুবই কম, দেখতেও ভালো এবং বার বার ব্যবহারও করা যাবে। সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে মানিব্যাগের মধ্যেই ঝামেলা ছাড়া এঁটে যায়।

উপরের টিপসগুলো খুব সহজেই করা সম্ভব এবং এগুলো চমৎকার কাজে দেয়। শুধু বাইরে ফিটফাট রাখলেইতো হবেনা ভাই,
ভেতরটাও পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে, তাহলেই না হবে পরিপুর্ন স্মার্টফোন!

MD Biplop Hossain

আমার নাম মোঃ বিপ্লব হোসেন , বর্তমানে আমি কম্পিউটার ডিপার্টেমন্টে ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং পড়াশোনা করছি আর নিজের জানা বিষয় গুলো অন্যদের জানাতে শিখাতে ভালো লাগে তাই আমার এই সাইট ।

4 comments

Your Header Sidebar area is currently empty. Hurry up and add some widgets.